Tuesday, January 31, 2023

আটপাড়ায় বেড়ী বাঁধের কাজে বাধা,সংঘর্ষ আহত ১৪: ১৫ বাড়িঘর ভাংচুর

মো: আসাদুজ্জামান খান সোহাগ , স্টাফ রিপোর্টার

- Advertisement -

নেত্রকোনার আটপাড়ায় ফসলরক্ষা বাঁধে চাঁদা দাবীকে কেন্দ্র করে দুই পক্ষের সংঘর্ষ হয়েছে। ওই উপজেলা বানিয়াজান সদর ইউনিয়নের আটিকান্দা ও মহড়াকান্দা গ্রামের মধ্যে বৃহষ্পতিবার সকালে দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ হয়। উপজেলার সুমাইখালী বেড়ী বাঁধের পিআইসি(প্রকল্প বাস্তবায়ন কমিটি) দুই সদস্য কমিটির সভাপতির কাছে এক লাখ টাকা চাঁদা দাবীর অভিযোগ ওঠে।

- Advertisement -

চাঁদা না দেওয়ায় সংঘর্ষে উভয় পক্ষের অন্তত ১৪ জন আহত হয়েছেন। ভাংচুর করা হয়েছে অন্তত ১৫ টি বাড়িঘর।
স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, জেলার আটপাড়া উপজেলার সুমাইখালী বাঁেধ ফসল রক্ষা বাঁধটির কাজ শুরু করা হয় গত ১০ জানুয়ারী। কিন্তু পিআইসি কমিটির সদস্য আব্দুল হাকিম ও সাইফুল ইসলাম স্থানীয় কয়েকজনকে নিয়ে কমিটির বাঁধ নির্মাণ কাজের পিআইসি কমিটির সভাপতি ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ঈশা খানের কাছে চাঁদা দাবীর করে। কিন্তু প্রকল্পের সভাপতি চাঁদা দিতে অস্বীকার করলে স্থানীয় লোকজন খালের পুরাতন রাস্তা কেটে বাঁধটি নির্মাণ করার অভিযোগ তুলে কাজে বাঁধা দেয়।

এনিয়ে গত বুধবার ওই এলাকার পাঁচগছ বাজার থেকে বাড়ি যাওয়ার পথে বাবুল মিয়ার লোকজন একজনকে মহড়াকান্দা গ্রামে পথরোধ করে মারপিট করে। মারপিটের ঘটনার প্রতিবাদ করতে গেলে আটিকান্দা গ্রামের লোকজন মহড়াকান্দা গ্রামে গেলে উভয় পক্ষের মধ্যে বাকবিতন্ডায় হয়। এক পর্যায়ে সংঘর্ষ দু’পক্ষের মধ্যে হয়। সংঘর্ষে মহড়াকান্দা গ্রামের রুপ্তন মিয়া, তরিকুল ইসলাম, শাকিল মিয়া, স্বপন মিয়া, সানজিদা আক্তার, পারভীন আক্তার, রাব্বী মিয়া, মালেকা খাতুন, সরাতের মা এবং আটিকান্দা গ্রামের জাহিতুল ইসলাম, আবু তাহের, ফারুক মিয়া, রোজ আলী, নিজাম উদ্দিন আহত হয়।

- Advertisement -

সংঘর্ষের সময় কয়েকটি বাড়ি ঘর ভাংচুর করা হয়। আহতরা আটপাড়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ও নেত্রকোনা আধুনিক সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।
এ ব্যাপারে হাসপাতালে কর্তব্যরত চিকিৎসক মাহিয়ান আহমেদ বলেন, আহতরা হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন। তারা বর্তমানে আশংকামুক্ত আছে।

অভিযুক্ত পিআইসি কমিটির সদস্য আব্দুল হাকিম ও সাইফুল ইসলাম মুঠোফোন বন্ধ থাকায় কথা বলা সম্ভব হয়নি।
তবে পিআইসি কমিটির সভাপতি ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি ঈশা খান বলেন, ‘ফসল রক্ষা বাধের কাজ গত ১০ জানুয়ারী থেকে শুরু করেছি। প্রায় ৬ লাখ টাকার কাজটি শুরু করলে পিআইসি কমিটির সদস্য আব্দুল হাকিম ও সাইফুল ইসলাম স্থানীয় কয়েকজনকে নিয়ে চাদা দাবীর করে। কাজের দায়িত্বে থাকা মহড়াকান্দা গ্রামের বাবুল মিয়ার বাড়িঘর সহ অন্তত ১৫ টি বাড়িঘর ভাংচুর করেছে। ১ লাখ টাকা না দিলে আমাকেও মেরে ফেলার হুমকী দিয়েছে। আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

- Advertisement -

আটপাড়া থানার ওসি (তদন্ত) আব্দুর রহিম বলেন, সংঘর্ষের খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে গিয়ে দু’পক্ষের লোকজনকে সরিয়ে দেয়া হয়েছে। আইন শৃঙ্খলা পরিস্থিতি বর্তমানে শান্ত আছে। ঘটনাস্থলে পুলিশ মোতায়েন আছে।

আটপাড়ার উপজেলা নির্বাহী শাকিল আহমেদ বলেন, ‘সরকারের নিয়মানুযায়ী পিআইসি’র কাজটি আগামী ২৮ ফেব্রæয়ারী প্রকল্পের কাজ শেষ করার কথা রয়েছে। কিন্তু প্রকল্পের সভাপতির কাছে এক লাখ টাকা চাঁদা চাওয়ার অভিযোগ ওঠেছে। এনিয়ে দু’পক্ষের সংঘষের খবর পেয়েছি। কয়েকটি বাড়িঘর ভাংচুরের ঘটনাও ঘটেছে। এনিয়ে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।’

আরও পড়ুন: নেত্রকোণায় জেলা বিএনপির আলোচনা সভা ও দোয়া মাহফিল

- Advertisement -
সম্পর্কিত সংবাদ
- Advertisment -

সর্বশেষ সংবাদ