শনিবার, অক্টোবর ১, ২০২২

কেন্দুয়ায় কমছে বন্যার পানি, বাড়ছে পানিবাহিত রোগ

সমরেন্দ্র বিশ্বশর্মা, বিশেষ প্রতিনিধি

- Advertisement -

নেত্রকোনার কেন্দুয়া উপজেলায় বন্যার পানি কমতে শুরু করেছে। পানি কমে যাওয়ার পর থেকে বাড়ছে পানিবাহিত রোগ। ঘরে ঘরে দেখা দিয়েছে ভাইরাস জ্বর-সর্দি ও ডায়রিয়ার প্রকোপ।

- Advertisement -

ঈদুল আযহার আগে থেকে শুরু হয়ে ডায়রিয়া এবং ভাইরাস জ্বরে মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে প্রতিদিন। জ্বরে আক্রান্তরা জানান, হঠাৎ সর্দি-কাশি, শরীর ব্যথা, গলা ব্যথা, নাক দিয়ে পানি পড়া ইত্যাদি উপসর্গ দেখা দেয়। এতে এক অসহনীয় অবস্থা চলতে থাকে। তারা আরও জানান, প্রায় প্রত্যেকের ঘরেই এখন ভাইরাস জ্বর ও ডায়রিয়ায় আক্রান্ত রোগী রয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৪ জুলাই) সকালে কেন্দুয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে দেখা যায়, ডায়রিয়া ও জ্বরে আক্রান্ত অনেক রোগী ভর্তি আছেন। ভর্তিকৃত মঞ্জিলা, সিরাজ মিয়া, আবু বক্কর, নাছিমা এবং আনোয়ারা জানান, তারা ডায়রিয়া ও জ্বরে আক্রান্ত হয়ে ভর্তি হয়েছেন।

- Advertisement -

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. মাশরুফ ওয়াহিদ জানান, ইনফ্লুয়েঞ্জা জ্বরের এই ভাইরাসটি উপজেলার সর্বত্র ছড়িয়ে পড়েছে। তাছাড়া ডায়রিয়ার প্রকোপও ব্যাপক। প্রতিদিন ২০/৩০ জন ডায়রিয়া ও জ্বরের রোগী চিকিৎসা নিতে আসছেন। গড়ে ৬০ পার্সেন্ট জ্বর ও ৩৫ পার্সেন্ট ডায়রিয়ায় আক্রান্ত হচ্ছেন মানুষ।

তিনি পরামর্শ দিয়ে বলেন, প্রচুর পানি, স্যালাইন ও তরল খাবার খেতে হবে। বাসি-পঁচা বা বাইরের খাবার বর্জন করতে হবে। জ্বরে আক্রান্তদের ৩ দিনের বেশি হলে চিকিৎসকের পরামর্শ নিয়ে এন্টিবায়োটিক খেতে হবে।

- Advertisement -

আরও পড়ুন: গৌরীপুর আইনজীবির সহকারীর ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার

- Advertisement -
এই জাতীয় আরও সংবাদ
- Advertisment -

জনপ্রিয় সংবাদ