Wednesday, December 7, 2022

শীতে চুলের ঘরোয়া যত্ন

- Advertisement -

শীতকাল অধিকাংশ মানুষের পছন্দ হলেও এসময় ত্বক, চুলসহ নানা অঙ্গপ্রত্যাঙ্গ রুক্ষ ও নিষ্প্রাণ হয়ে পড়ে। তাই অতিরিক্ত যত্ন নিতে হয়। অনেক সময় ত্বকের সমস্যা থেকে চুলেও নানা রোগ দেখা দেয়। শীতকালে অনেকের চুলে খুশকি হয়, চুল রুক্ষ হয়ে। এ ছাড়া চুল ভেঙে যাওয়া, পড়ে যাওয়া, আগা ফেটে যাওয়ার মতো সমস্যা হয়। এসব থেকে রক্ষা পেতে শীতকালে চুলের অতিরিক্ত যত্ন দরকার হয়। আসুন জেনে শীতকালে চুল ভালো রাখার কয়েকটি টিপস।

- Advertisement -

* শীতে অনেকের চুল পড়তে দেখা যায়। এই চুল পড়া রোধে এলোভেরা জেল, অলিভ অয়েল ও ক্যাস্টর অয়েল (রেড়ির তেল) একসঙ্গে হালকা গরম করে নিন। ঠান্ডা হয়ে গেলে তাতে ভিটামিন-ই ক্যাপসুল ভেঙে মিশিয়ে চুলে লাগান।

* চুল ভালো রাখতে গেলে চুলে তেল দিতেই হবে। তেল হলো চুলের খাদ্য। শীতের দিনগুলোতে সবচেয়ে বেশি উপকারে আসে গরম তেল ম্যাসাজ। নারিকেল তেল, অলিভ অয়েল, বাদাম তেল বা যেকোনো চুলে লাগানোর তেল হালকা গরম করে নিয়ে চুলের গোড়ায় ম্যাসাজ করে লাগান। ৩০ থেকে ৪০ মিনিট রেখে চুল ধুয়ে ফেলুন।

- Advertisement -

* শীতের দিনে বাতাসে আর্দ্রতা কম থাকে। এতে মাথার ত্বক আর্দ্রতা হারানোর কারণে কম-বেশি সবাই এই সময়ে খুশকির সমস্যায় ভোগেন। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে আধা কাপ অলিভ অয়েল হালকা গরম করে এর সঙ্গে এক ফালি লেবুর রস মিশিয়ে চুলের গোড়ায় লাগান। ৪৫ মিনিট রেখে হালকা কোনো শ্যাম্পু ব্যবহার করে ধুয়ে ফেলুন। সপ্তাহে ৩ থেকে ৪ বার এভাবে চুলের যত্ন নিন।

* শীতে বেশির ভাগ মানুষের চুল রুক্ষ আর শুষ্ক হয়ে পড়ে। এ সময় চুলের জন্য আধা কাপ পালং শাক, ১ চা চামচ মধু এবং ১ চা চামচ অলিভ অয়েল বা নারিকেল তেল নিয়ে ব্লেন্ডারে ভালো মতো ব্লেন্ড করুন। এরপর এই মিশ্রণটি চুলে লাগিয়ে ৩০ মিনিট পর শ্যাম্পু করে ফেলুন। চুলে সিল্কি ভাব আসবে ও চুল হবে মসৃণ প্রাণবন্ত।

- Advertisement -

* শীতের তীব্রতা যতই বাড়ুক চুলে শ্যাম্পু করা বন্ধ করা যাবে না। আবার বেশিদিন শ্যাম্পু না করলে চুলের গোড়ায় ময়লা জমে চিটচিটে হবে ও খুশকি হবে। এ সময় অনেকেই গরম পানিতে গোসল করেন। তবে গরম পানিতে মাথা ভিজিয়ে রাখবেন না।

* শীতকালে বেশি শ্যাম্পু করবেন না। এতে চুলের প্রাকৃতিক তেল হারিয়ে গিয়ে চুলকে রুক্ষ করে তুলবে।

* শীতকালে শ্যাম্পুর পর চুলে কন্ডিশনার লাগাতেই হবে। শ্যাম্পুর পর কন্ডিশনার না লাগালে চুল রুক্ষ ও শুষ্ক হয়ে যাবে। এতে চুলের গোড়া ফেটে যেতে পারে। বরং শীতকালে চুল নরম রাখতে ডিপ কন্ডিশনিং জরুরি। কন্ডিশনার লাগিয়ে তা বেশ কয়েক মিনিট চুলে লাগিয়ে রেখে তারপর ধুয়ে ফেলুন।

* ভিজে চুল আঁচড়ানো কিন্তু একদম ঠিক নয়। শীতকালে চুল শুকোতে সময় নেয়। তাড়া থাকলে ভিজে চুল আঁচড়ে নিয়েই অনেক সময় বেরিয়ে পরি আমরা। এতে কিন্তু চুলের ক্ষতি হয়। ভিজে চুলে বেশি স্পর্শকাতর হওয়ায় সহজেই ঝরে যেতে পারে। অনেকে আবার চুল ভেজা থাকলে হেয়ার ড্রায়ার দিয়ে শকিয়ে নেন। কিন্তু গরম হাওয়া দিলে চুলের অত্যন্ত ক্ষতি হয়।

* সোয়েটার খোলা ও পরার সময় উলের সঙ্গে ঘষায় অনেক চুল পড়ে যায়। তাই খেয়াল রাখবেন চুল ভিজে থাকলে সেই সময় সোয়েটার পরবেন না। আর পারলে গলায় ভালো স্কার্ফ বেঁধে নেবেন। তাহলে সোয়েটারের থেকে চুলকে অনেকটা রক্ষা করবে ওই স্কার্ফ।

আরো পড়ুন: মিমকে বর নিয়ে সন্তুষ্ট থাকার পরামর্শ পরীমনির

- Advertisement -
সম্পর্কিত সংবাদ
- Advertisment -

সর্বশেষ সংবাদ